ePaper

কৃষি গবেষণায় জি-২০'র বিনিয়োগ প্রয়োজন : কৃষিমন্ত্রী

কৃষি গবেষণায় জি-২০'র বিনিয়োগ প্রয়োজন : কৃষিমন্ত্রী
সাক্ষাৎকার

 কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক ভবিষ্যতে কৃষিখাতে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব ও চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাংলাদেশের মতো কৃষিপ্রধান দেশের কৃষি গবেষণায় বিনিয়োগের জন্য জি-২০এর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ।

আজ শুক্রবার ভারতের হায়দরাবাদে জি-২০ কৃষিমন্ত্রীদের তিন দিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধনী সেশনে আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে দেয়া বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান। 

মন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে খাদ্য নিরাপত্তার জন্য জলবায়ু পরিবর্তন সবচেয়ে বেশি হুমকিস্বরূপ। সেজন্য বাংলাদেশ সরকার জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় অনেকগুলো পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এরপরও বৈশ্বিক সংকট, যুদ্ধ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও অভ্যন্তরীণ উৎপাদন হ্রাস সহ যে কোন অপ্রত্যাশিত পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য জি-২০'র স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদি কার্যকর পদক্ষেপ দরকার।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের কার্যকর কৃষিবান্ধব নীতির কল্যাণে বাংলাদেশে ফসল উৎপাদনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন এসেছে। একদিকে জনসংখ্যা বাড়ছে, অন্যদিকে চাষযোগ্য জমি ইতোমধ্যে ১ দশমিক ৭৫ ভাগ কমেছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেও ফসলের উৎপাদন বহুগুণ বৃদ্ধির কারণেই ১৭ কোটি মানুষের প্রয়োজনীয় খাদ্য দেশের অভ্যন্তরেই উৎপাদন করা সম্ভব হচ্ছে। 

'খাদ্য নিরাপত্তা ও পুষ্টির জন্য টেকসই কৃষি' শিরোনামের এ সেশনে ভার্চুয়ালি বক্তব্য প্রদান করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এছাড়া ভারতের কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং টোমার, জি-২০ভুক্ত ১৯টি দেশের কৃষিমন্ত্রী, বাংলাদেশসহ আমন্ত্রিত ১০টি দেশের কৃষিমন্ত্রীগণ বক্তব্য রাখেন। এতে বিশ্বব্যাংক, এডিবিসহ ১০টি আন্তর্জাতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। 

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সহযোগিতার শীর্ষ সংগঠন জি-২০'র এবারের সম্মেলনের আয়োজক ভারত। নয়াদিল্লীতে আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে বাংলাদেশ আমন্ত্রিত দেশ হিসাবে অংশগ্রহণ করবে।